One Stop Digital Education Portal
আর্কিমিডিসের সূত্র
Price: Free Course Post By: Hasan সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: 05 Sunday 2020

আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে দেখতে পাই যে কোনো কঠিন বস্তুকে পানিতে ডুবালে হাল্কা বলে মনে হয়। এর কারণ ডুবন্ত বস্তুর উপর একটা ঊর্ধ্বমুখী বল বা প্লবতা কাজ করে। খ্রিষ্টপূর্ব তৃতীয় শতাব্দীতে গ্রিক দার্শনিক আর্কিমিডিস আবিষ্কার করেন যে, কোনো বস্তুকে স্থির তরল অথবা বায়বীয় পদার্থে আংশিক বা সম্পূর্ণ ডুবালে বস্তুটি কিছু ওজন হারায় বলে মনে হয়। এই হারানো ওজন বস্তুটির দ্বারা অপসারিত তরল বা বায়বীয় পদার্থের ওজনের সমান।
পরীক্ষণ : একটি বস্তু নাও যার ওজন জানা। এবার বস্তুটিকে একটি হালকা সুতোয় বেঁধে কানায় কানায় পানি ভর্তি

বড় বিকারের মধ্যে ডুবাও। এর ফলে কিছু পানি উপচে পড়বে। পানিতে নিমজ্জিত অবস্থায় বস্তুটির ওজন নাও। জানা ওজন থেকে এই ওজন বিয়োগ করে আপাত ওজন হ্রাস বের কর। এবার উপচে পড়া পানির ওজন বের কর। দেখা যাবে বস্তুর ওজনের আপাত হ্রাসের পরিমাণ অপসারিত তরলের ওজনের সমান। এভাবে আমরা আর্কিমিডিসের নীতির একটা সহজ প্রমাণ পেতে পারি।
হিসাব কর : একটি আয়তাকার ব্লকের তলদেশের ক্ষেত্রফল 25 cm², একে পানির মধ্যে ডুবানো হলো। পানির

ঘনত্ব । পানির উপরিতল থেকে ব্লকের উপরের পৃষ্ঠের গভীরতা = 5cm,ব্লকের উচ্চতা 2cm.হলে
১।ব্লকের উপরিতলে পানির চাপ বের কর
২।ব্লকের তলদেশে পানির চাপ বের কর
৩।ব্লকের উপরিতলে পানি কী পরিমাণ বল প্রয়োগ করবে?
৪।ব্লকের নিম্নতলে পানি কী পরিমাণ বল প্রয়োগ করবে? ফলাফলে তোমার মন্তব্য লিখ।

বাংলাদেশে নৌপথে দূর্ঘটনার কারণ: আমাদের দেশে প্রায়ই নৌ-দূর্ঘটনা ঘটে। একটা নৌযান যখন তৈরি করা হয় তখন তার আকৃতি ও আকার এমন হয় যে পানিতে ভাসালে ডুবন্ত অংশটুকু কর্তৃক অপসারিত পানির ওজন নৌযানের ওজনের সমান। এখন যত যাত্রী উঠবে তত নৌযানটি ভারী হবে এবং পানির মধ্যে ডুবতে থাকবে। ধারণ ক্ষমতার বেশি যাত্রী উঠলে সেটা ডুবে যাবে। যেহেতু নদীতে স্রোত থাকে, ঢেউ থাকে তাই ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বরং কিছু কম যাত্রী নিয়ে বা আবহাওয়ার সতর্ক সংকেত অনুসরণ করে সতর্ককতার সাথে নৌযান চালানো উচিত। নৌযানের ত্র“টিপূর্ণ নক্সার জন্যও অনেক সময় ভরকেন্দ্র পরিবর্তিত হয়ে দূর্ঘটনা ঘটায়। কখনও অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে নৌযানে উঠা ঠিক নয়।